Kanzul Haq

কানযুল হক

সত্য • সংস্কার • সম্প্রসার

এই সংস্থার একটিমাত্র উদ্দেশ্য। সেটা হচ্ছে, মুসলমানদের অন্তর কলুষতামুক্ত করে প্রকৃত আশেকে রসুল হিসেবে তৈরী করা। আর প্রকৃত আশেকে রসুলতো সেই; যে জীবনের প্রতিটা মুহুর্তে নবীপ্রেমের প্রমাণ দেয়। হোক তা রাজনীতির মাঠে বা অন্য কোথাও। কারণ, এমন অনেক নবীপ্রেমিক আছে যারা নিজেকে নবীপ্রেমিক দাবি করে অথচ ভোট আসলে নবীকে ভুলে যায়, ক্ষমতা পেলে নবীকে ভুলে যায়, নবীর রাজনীতি চায়না, ইসলামী শাসনতন্ত্র চায়না। বোঝা যায়, সে যাই বলুক; প্রকৃতপক্ষে সে মুনাফিক। ঠিক তেমনিভাবে কেউ যদি নিজেকে নবীপ্রেমিক দাবি করে নামাজ না পড়ে, তাহলে বোঝে নিতে হবে সে মিথ্যা প্রেমের দাবিদার। আর নবীপ্রেমকে মহামারী থেকে বেশী ছড়িয়ে দেয়ার মিশনের নামই হলো, “কানযুল হক”; যা ২০২১ সালে ১২ ই রবিউল আউয়ালে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এটি মুস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামেরই মিশন এবং সংস্থা; যার হাত ধরে বহু মানুষ হেদায়েতের আলো পেয়েছে, হারাম কাজ ছেড়েছে। 

According to the prophecy of the Holy Prophet (peace be upon him), the Ummah will be divided into 73 groups. But the saved, the true party and the heavenly party is only one. All other factions are hellish and deceitful. But they will claim themselves to be Muslims and their actions will show much piety. By which people will be confused and accept them. As a result, everyone will be misled and misguided.

Now speaking, the devil never calls himself the devil. They never talk bad about themselves either. Instead, they’ll claim they’re right. But the common people misunderstand who is actually right.

And at that very moment, an institution or organization was formed to bring everyone to the path of guidance by providing logical answers to all the questions of people with the power of logic.

Moreover, Muslims know Islam as the complete way of life; But does not implement. In the political arena, Islam is forgotten due to the greed for power. Claiming to be a Muslim; But the greed of power does not want Islamic governance. And this Kanzul Haq is established to bring back this lost spirit of Muslims.

It is not a mere organization. A mission rather; For the mission for which Mustafa, may Allah bless him and grant him peace, bled on the field of Taif, Imam Hussain donated the neck of Mubarak.

A name has been fixed from verse 42 of Holy Surah Baqarah in a special verse of Quran Sharif. And the name is “Kanzul Haq”.

It was officially established on 12th Rabiul Awal in the year 2021. From 2018/2019 onwards, the idea of establishing it was introduced. Today, many boys have received the light of guidance by holding the hand of this Kanzul Haq, and have left the forbidden work. There are many such proofs.

Although these were achieved after bloody pursuit. Because, Kanzul Haq is successful only if he can establish at least one Muslim as a complete Prophet lover. Because, a person who is modeled on the example of the Holy Prophet (peace be upon him) will be truly established as a human being; No matter what religion he belongs to. Confirming this comment, Kanzul Haq is ready to meet the challenge.

Kanzul Haq also has women’s forum, online team. We should serve this mission selflessly. And if Mustafa ﷺ accepts it!

  • কানযুল হক.

    কানযুল হক.

উক্তি

হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা

হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম)

সত্য বলো;যদিও তা তিক্ত হয়।

হযরত মওলা আলী

হযরত মওলা আলী (রাঃ)

পুণ্য অর্জন অপেক্ষা পাপ বর্জন শ্রেয়।

ইমাম ফখরুদ্দিন রাজী

ইমাম ফখরুদ্দিন রাজী (রহ.)

জঘন্যতম মিথ্যা হলো যার সঙ্গে কিছু সত্যের মিশ্রণ দেওয়া হয়।

কানযুল হক

কানযুল হক — Kanzul Haq

ইসলাম শুধুমাত্র নামাজ,দোয়া এবং আনুষ্ঠানিকতার নাম নয়।বরং জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে,প্রতিটি ক্ষেত্রে এবং প্রতিটি বিভাগে এর বিধানাবলি বাস্তবায়ন করার নাম।

নিজে হই সংশোধনসমাজ করি উন্নয়ন।নিজে হই নেককারবিশ্ব করি সংস্কার।

এই ওয়েবসাইটটি এখনো নির্মাণাধীন। আপডেটের কাজ চলমান রয়েছে। সকলের মতামত এবং অংশগ্রহণ প্রত্যাশা করছি। ধন্যবাদ।

কানযুল হক সম্পর্কে

রসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ভবিষ্যৎ বাণী অনুযায়ী উম্মতেরা ৭৩ টা দলে বিভক্ত হবে। কিন্তু নাজাতপ্রাপ্ত, সত্য দল এবং জান্নাতি দল শুধু একটাই। বাকিসব দল জাহান্নামি এবং প্রতারক। অথচ তারা নিজেদেরকে মুসলমান বলেই দাবি করবে এবং তাদের কর্মকাণ্ডে প্রচুর ধার্মিকতা প্রকাশ পাবে। যা দেখে মানুষ বিভ্রান্ত হবে এবং তাদেরকে গ্রহণ করবে। ফলে সবাই গোমরাহ এবং পথভ্রষ্ট হয়ে যাবে।

এখন কথা হচ্ছে, শয়তান কখনো নিজেকে শয়তান বলেনা। তারাও কখনো নিজেদের খারাপ বলবেনা। বরং, তারা দাবি করবে তারা সঠিক। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কারা সঠিক তা সাধারণ জনগণ বুঝতে ভুল করে ফেলে।

আর ঠিক সেই মুহূর্তে যুক্তির শক্তিতে মানুষের সকল প্রশ্নের যৌক্তিক জবাব দিয়ে সকলকে হেদায়েতের পথে আনার জন্য একটি প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা গঠিত হয়েছে।

তাছাড়া মুসলমানরা ইসলামকে পরিপূর্ণ জীবনবিধান হিসেবে জানে ঠিকই; কিন্তু বাস্তবায়ন করেনা। রাজনৈতিক অঙ্গনে ক্ষমতার লোভে ইসলামকে ভুলে যায়। নিজেকে মুসলমান দাবীদার ঠিকি হয়; কিন্তু ক্ষমতার লোভে ইসলামী শাসনতন্ত্র চায় না। আর মুসলমানদের এই হারানো চেতনা ফিরিয়ে আনতেই এই কানযুল হক প্রতিষ্ঠিত।

এটি কোনো নিছক সংগঠন নয়। বরং একটি মিশন; যেই মিশনের জন্য মুস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তায়েফের ময়দানে রক্তাক্ত হয়েছিলেন, ইমাম হুসাইন গর্দান মোবারক দান করেছিলেন।

কুরআন শরীফের বিশেষ আয়াতে পাক সূরা বাকারার ৪২ নং আয়াত থেকে একটি নাম ঠিক করা হয়েছে। আর এরি নাম হলো “কানযুল হক”।

২০২১ সালে ১২ ই রবিউল আউয়ালে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৮/২০১৯ থেকেই এটি প্রতিষ্ঠার চিন্তাধারা প্রবর্তিত হয়। আজ বহু ছেলে এই কানযুল হকের হাত ধরে হেদায়েতের আলো পেয়েছে, হারাম কাজ ছেড়েছে। এমন অনেক প্রমাণ আছে।

যদিও রক্তিম সাধনার পর এসব অর্জিত হয়েছে। কারণ, অন্তত একজন মুসলমানকে পরিপূর্ণ নবীপ্রেমিক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারলেই কানযুল হক সফল। কেননা, রসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর আদর্শে আদর্শিত ব্যক্তি সত্যিকার অর্থে মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবেই; সে যে ধর্মের লোকই হোক না কেনো। এই মন্তব্যের সত্যায়নে কানযুল হক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে প্রস্তুত।

কানযুল হক মহিলা ফোরামও রয়েছে, অনলাইন টিমও রয়েছে। আমাদের এই মিশনের নিঃস্বার্থ খেদমত করা উচিত। যদি মুস্তফা ﷺ কবুল করেন আরকি!

মূলনীতি

Truth (সত্য), Reform (সংস্কার), Development (সম্প্রসার)

আদর্শ

সর্বদা সত্যনিষ্ঠ এবং যৌক্তিকতা অনুসরণ এবং বাস্তবায়ন।

উদ্দেশ্য

তোষামোদহীন যৌক্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা এবং নৈতিক আদর্শ ও মতবাদ বাস্তবায়ন।

লক্ষ্য ও কর্মসূচি

১/সত্য ও যৌক্তিক ধর্ম ইসলামকে উপলব্ধি করা এবং করানো।

২/ধর্মীয় অভ্যন্তরীণ যৌক্তিক চিরসত্য মতাদর্শ প্রতিষ্ঠা।

৩/নিজে সংশোধিত হয়ে অন্যকে সংশোধন করা।

৪/সমাজে ন্যায়, উন্নয়ন এবং সংস্কার করা।

দলীয় স্লোগান

১/নিজে হই সংশোধন,
সমাজ করি উন্নয়ন।

২/নিজে হই নেককার,
বিশ্ব করি সংস্কার।


প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে অদ্যবধি কানযুল হক’র সাংগঠনিক কার্যক্রমসমূহ সালক্রমেঃ

২০১৮

কানযুল হক প্রতিষ্ঠার চিন্তাধারা প্রবর্তন

মূলতঃ এই সময় থেকেই মিশন কানযুল হক পা বাড়ায়।

২০১৯

পটিয়ার ধাউরডেংগা অঞ্চলে ‘দাওয়াতে খায়র’ এর আবর্তন

চট্টগ্রামে অবস্থিত পটিয়াস্থ ধাউরডেংগা এলাকার আভ্যন্তরীণ আকিদা-আমলগত সমস্যাকে কেন্দ্র করেই এর বিবর্তন।

প্রতি সোমবার এবং বৃহস্পতিবার বিষয়ভিত্তিক খোলাখুলি আলোচনা করার নিয়ম চালুকরণ

মানুষ বিভ্রান্ত হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে, প্রশ্নের যথাযথ উত্তর খুজেঁ না পাওয়া। আর এই সমস্যা সমাধানে ‘টিম কানযুল হক’ এই অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নেয়।

২০২০

টিম গঠনের জন্য ‘হাবীব’ তৈরি

(‘কানযুল হকের দায়িত্বশীল পদ হচ্ছে ‘খাদেম’। খাদেমদেরকে ‘কানযুল হক’ এর ‘হাবীব’ হিসেবে গণ্য করা হবে। )

২০২১

আনুষ্ঠানিকভাবে ১২ ই রবিউল আউয়ালের দিন মিশন শুরু করা হয়; যদিও ২০১৮ সালে এর প্রবর্তন হয়।

পটিয়ার ধাউরডেংগা এলাকায় প্রথমবারের মতো ঈদে মিলাদুন্নবী ﷺ উপলক্ষে জুলুস বা আনন্দ র‍্যালি এর আবর্তন।

২০২২

‘কানযুল হক অনলাইন টিম’ গঠন

এই টিম অনলাইনে কানযুল হকের সেবা প্রদানে নিয়োজিত।

‘কানযুল হক নারী ফোরাম’ গঠনের চিন্তাধারা প্রবর্তন

সমাজের সকলের কথা মাথায় রেখেই এর চেতনার আবর্তন।

‘কানযুল হক’ এর আয়োজনে ‘দরসে আকায়েদ’ তথা আকিদার দরস এর প্রবর্তন

‘দরসে আকায়েদ’ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘কানযুল হক’ মানুষের আকিদা বিশ্বাস সংশোধন করতে চায়। এক্ষেত্রে তারা মজবুত এবং অখন্ডনীয় দলিল বা যুক্তি উপস্থাপন করে। তাদের বিপক্ষে কোনো দলিল থেকে থাকলে এবং যৌক্তিক খন্ডন করতে পারলে ‘কানযুল হক’ অবশ্যই নত স্বীকার করবে।

‘কানযুল হক’ এর প্রধান অফিস প্রতিষ্ঠা

এটি একটি অস্থায়ী অফিস। পরবর্তীতে এটির স্থায়িত্ব প্রকাশ করা হবে।

‘ইসলাহে আ’মালে উম্মত’ তথা ‘উম্মতের আমলকেন্দ্রিক সংশোধন’ নামক প্রজেক্ট/দরস/প্রশিক্ষণ ইত্যাদির প্রবর্তন

আজকাল মুসলমানরা ইসলামকে শুধুই নামাজ-দোয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখেছে। অথচ তারা সকলেই নির্দ্বিধায় স্বীকৃতি দেয় যে, ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। কিন্তু বাস্তবে তারা উদাসীন। একারণে তারা পিছিয়ে বললেই হয়। তাই, তাদের জাগরণে এই মিশন কাজ করে যাচ্ছে।

‘কানযুল হক পরামর্শ বোর্ড’ গঠনের চিন্তাধারা প্রবর্তন

জ্ঞানী, যুক্তবাদী, ন্যায়বিচারক, সত্যনিষ্ঠ ব্যক্তিত্বসম্পন্নদের নিয়ে এই বোর্ড গঠিত হবে।

‘কানযুল হক নাত কাউন্সিল’ প্রতিষ্ঠা

ইসলাম আনন্দে কখনোই বাধা দেয়নি। বরং, অন্যায়, হারাম এবং অশ্লীলতায় ইসলামের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু তথাকথিত মুসলমানেরা সুরের রাজ্যে আনন্দ হিসেবে অশ্লীলতাকেই বেছে নেয়। আর মুসলমানদের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে বিপ্লব আনতেই এই টিম কাজ করে যাচ্ছে।

‘কানযুল হক কিশোর টিম’ গঠন

কিশোর বয়সী এবং তার নিম্নবয়সী ভাইদের জাগরণে এটি গঠিত হয়।

‘কানযুল হক নারী ফোরাম’ গঠন

নারীসমাজের বিপ্লবে ‘কানযুল হক উইমেন টিম’ গঠিত হয়।

দেশে ৬ টির অধিক শাখা প্রতিষ্ঠা

যৌক্তিক মতবাদ সর্বত্র প্রতিষ্ঠার উদ্দ্যেশ্যে দেশে ৬ টিরও অধিক শাখা প্রতিষ্ঠিত হয়। তাছাড়া আরো জায়গায় কানযুল হকের কার্যক্রম চলমান।

‘কানযুল হক স্টাডি টিম’ গঠন

পড়াশুনা থেকে আজকাল লোকেরা এক্কেবারেই বিমুখ। ফলস্বরূপ তারা যুক্তির সাহায্যে কোনো বিষয় বিবেচনা করতে ব্যর্থ। তাছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক দিক দিয়ে শিক্ষিত লোকের হার বাড়লেও জ্ঞানীর হার দিন দিন কমছে এবং মূর্খতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর সমাজে জ্ঞানমূখী পড়ালেখার জাগরণ এবং বিপ্লবের উদ্দ্যেশ্যেই এই টিম গঠিত হয়েছে।

‘কানযুল হক দরসে কাদেরী’ প্রতিষ্ঠা

একসময় ইলমে দীনের আলেমগণ শুধুই একমুখী শিক্ষায় শিক্ষিত ছিলেননা। বরং, যুগের সেরা সেরা আবিষ্কার থেকেও শুরু করে চিকিৎসা, বিজ্ঞান, অর্থনীতি ইত্যাদি বহু বিষয়ে তাদের ছিলো দক্ষতা। কিন্তু আফসোস আজকাল আলেমগণ কিতাববিমুখ এবং বহুমুখী জ্ঞানচর্চা হতে দূরে। ফলে তারা সমাজের কঠিনতর প্রশ্নাবলীর উত্তর এবং সমস্যার সমাধান দিতে ব্যর্থ। আর তাদের জাগরণ এবং বিপ্লবে উত্থান হয় দরসে কাদেরীর। এটি মূলতঃ ‘দরসে নিজামী’ নামক শিক্ষাব্যবস্থার অন্যরুপ।

Activity

কানযুল হক’র সদস্যত্ব

‘কানযুল হক’ দুই ধরণের সদস্য গ্রহণ করে। একটি খেদমতগার সদস্য(খাদেম), আরেকটি সমর্থক সদস্য। ‘খাদেম’ দায়িত্বশীল একটি পদ; যেখানে সবাইই সেবক। খাদেমদেরকে কানযুল হক –এর ‘হাবীব’ হিসেবে গণ্য করা হবে। সমর্থক সদস্য হিসেবে স্বাভাবিকভাবে সবাই যুক্ত হতে পারবে। কিন্তু খাদেম হিসেবে যুক্ত হবার জন্য শর্তাবলীতে স্বাক্ষর করে ওয়াদাবদ্ধ হতে হবে। কারণ, আপনাকে সত্যিকারের নবীপ্রেমিক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারলেই ‘কানযুল হক’ সফল।

শর্তাবলী

১/আকিদা বা মতবাদে দৃঢ়ভাবে রসুলুল্লাহ ﷺ কর্তৃক ঘোষিত নাজাতপ্রাপ্ত দল ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত’ এর অন্তর্ভুক্ত হতে হবে।
২/সৃষ্টিকুলের সবকিছু থেকে রসুলে পাক ﷺ কে সবচেয়ে বেশী ভালোবাসতে হবে।
৩/ঐসকল কাজ করতে হবে যেসকল কাজে আল্লাহ ও তাঁর রসুল ﷺ রাজি থাকেন। ঐসকল কাজে নিজেকে জড়িত করতে পারবেনা যেথায় আল্লাহ ও তাঁর রসুল ﷺ নারাজ হন।
৪/ইসলামকে পরিপূর্ণ জীবনবিধান হিসেবে জেনে আমল করতে হবে।
৫/ইসলামী রাজনীতিকে প্রাধান্য দিতে হবে, ভালোবাসতে হবে এবং নিজের ক্ষেত্রে বাস্তবায়ন করতে হবে।
৬/তোষামোদহীন হতে হবে।
৭/আল্লাহ-রসুলকে দুনিয়াদারী থেকে বেশী প্রাধান্য দিতে হবে এবং দুনিয়ালোভী হতে পারবেনা।
৮/পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে হবে।
৯/পূর্বের সকল ধরণের গুণাহ, অন্যায় এবং পাপাচার থেকে তওবা(ফিরে আসা) করতে হবে।
১০/নিঃস্বার্থভাবে মুস্তফা ﷺ এর সুন্নিয়তের খেদমত করতে হবে।

নিবন্ধন ফর্ম পূরণের নিয়মাবলী

• ‘সমর্থক’ কিংবা ‘খাদেম’ সদস্য – যেটি পছন্দ সেটি সিলেক্ট করতে হবে। আবার চাইলে ‘সমর্থক ও খাদেম’ সদস্য অপশনটি সিলেক্ট করা যাবে; যদি কেউ একত্রে সমর্থক এবং খাদেম সদস্য হতে চায়।
• ফর্মের সবগুলো অপশন পূরণ কতে হবে। শুধুমাত্র জন্মতারিখ, রক্তের গ্রুপ, মোবাইল নাম্বার ও ইমেইল ইংরেজিতে পূরণ করতে করা যাবে। এগুলো ছাড়া বাকি সব অপশন বাংলায় পূরণ করতে হবে।
• নিচে “প্রদত্ত তথ্যসমূহ সত্য ও সঠিক। আমি উল্লেখিত শর্তাবলীতে সম্মত হয়ে সদস্য হতে ইচ্ছুক।” – এর আগের বক্সে টিক চিহ্ন দিতে হবে। টিক চিহ্ন দেয়ার মাধ্যমে আপনি শর্তাবলীতে স্বাক্ষরিত করেছেন।
• সবশেষে ক্যাপচা ভেরিফাই করে ফর্ম সাবমিট করে কয়েক সেকেন্ড অপেক্ষা করুন। ক্যাপচার শুরুতে ডানের যে চিত্রের নাম অনুযায়ী – নিচের একই ধরনের চিত্র চিহ্নিত করতে বলবে, সেগুলো চিহ্নিত করুন।
• সঠিকভাবে সাবমিট করা হলে লোডিং হবার কিছুক্ষণের মধ্যে সবুজ বক্সে নোটিফিকেশন দেখাবে, “আপনার সদস্য নিবন্ধন ফর্ম গ্রহণ করা হয়েছে। কানযুল হকের পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ।”

কানযুল হক’র সদস্য নিবন্ধন ফর্ম

    📌 সদস্য স্তর*
    সমর্থকখাদেমসমর্থক ও খাদেম

    👥 পুরো নাম*

    🧔🏻 বাবার নাম*

    🧕🏻 মায়ের নাম*

    🗓️ জন্মতারিখ*(দিন-মাস-সাল)

    🩸 রক্তের গ্রুপ*

    📲 মোবাইল নম্বর*(11)

    📧 ইমেইল*

    🗞 পেশা*(40)

    🏛️ শিক্ষাগত/কর্মরত প্রতিষ্ঠান*(100)

    🏢 বর্তমান ঠিকানা*(220)

    🏡 স্থায়ী ঠিকানা*(220)

    আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন

    মোহাম্মদ শরীফ কাদেরী

    মোহাম্মদ শরীফ কাদেরী

    mail@kanzulhaq.com

    ০১৬০-১৫১-০১৬০

    ধাউরডেঙ্গা, পটিয়া, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ

    সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

    সংগঠনের তহবিলে ডোনেশন করুন

    কানযুল হক কোনো নিছক সংগঠন নয়। বরং একটি মিশন। আমাদের চলমান সাংগঠনিক ভিত্তিকে সম্প্রসারিত করতে এবং ওয়েবসাইট ও অনলাইন কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আপনাদের সকলের সহযোগিতা চাই।
    তাই মুক্তহস্তে আমাদের সাংগঠনিক তহবিলে দান করুন। তহবিলে সহায়তা পাঠানোর পরে অনুগ্রহপূর্বক এই ফর্মটি পূরণ করুন। এটি ডিজিটাল রশিদ। আপনার সহযোগিতার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।
    কানযুল হকে’র bKashRocket নাম্বারঃ 01601510160
    এর পাশাপাশি বিনিময় ট্রানজেকশন প্ল্যাটফর্মঃ abdullah.arham@binimoy

      👥 পুরো নাম*

      📧 ইমেইল*

      📌 এমএফএস*
      bKashRocketBinimoy

      📲 মোবাইল নম্বর*(11)

      💸 প্রেরিত অর্থের পরিমাণ ৳*

      ⌚ তারিখ ও সময়

      📼 ট্রানজেকশন আইডি

      কানযুল হকের সাথে অনলাইনে পত্র যোগাযোগ

      নিচের ওয়েব কন্টাক্ট ফর্মটি পূরণ করার মাধ্যমে আপনার মতামত/বার্তা/প্রশ্ন/অনুরোধ আমাদের জানাতে পারবেন। ফর্ম সাবমিট পরে আমরাই আপনার সাথে যোগাযোগ করব।

        👥 Full Name*

        📧 Email*

        💬 Subject (100)

        📝 Message (0)

        ওয়েবসাইট ডেভলপমেন্ট

        আপনি যদি এই ওয়েবসাইটের অনুরূপ ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহলে আজই যোগাযোগ করুনঃ baa@kanzulhaq.com